মোট দেখেছে : 430
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

সাজেকে জেএসএস কর্তৃক ধাপে ধাপে বন্ধ হচ্ছে রিসোর্ট-কটেজ

সাজেকে জেএসএস কর্তৃক ধাপে ধাপে বন্ধ হচ্ছে রিসোর্ট-কটেজ

মোঃজুয়েল, বাঘাইছড়ি(রাঙ্গামাটি)প্রতিনিধি : রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নে অবস্থিত দেশের অন্যতম পর্যটন স্পট সাজেকে জেএসএস কর্তৃক রিসোর্টে পানি সরাবরাহ বন্ধ করে দেওয়ার মাধ্যমে ধাপে ধাপে বন্ধ করে দিচ্ছে সাজেকের রিসোর্ট কটেজ গুলো।কোন কারন ছাড়াই সাজেকে জেএসএস(সন্তু)  কর্তৃক  গত ১৭জানুয়ারী থেকে ০৫মার্চ পর্যন্ত ১৬টি রিসোর্ট কটেজে পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয় সংঘটনটি । জানাযায় গত ১৭জানুয়ারী দুইটি রিসোর্ট  ১/ মনটানা রিসোর্ট এন্ড রেস্টুরেন্ট  ২/রয়েল সাজেক,  গত ২৮শে ফেব্রুয়ারী  দুইটি  ১/মেঘালয় রিসোর্টে  ২/হিমালয় রিসোর্ট, গত ২মার্চ ৪ টি রিসোর্ট  ১/ গরবা রিসোর্টে  ২/মেঘ কাব্য রিসোর্ট ৩/সাজেক মেঘ বিলাস ৪/আল মদিনা রেস্টুরেন্ট, গত ৩মার্চ ২ টি রেস্টুরেন্টের পানি বন্ধ করে ১/বিসমিল্লাহ রেস্টুরেন্ট  ২/মহসিন রেস্টুরেন্ট, এবং মঙ্গলবার ০৫ মার্চ  আরও ০৬ টি কটেজ এন্ড রিসোর্টে পানি নেওয়া বন্ধ করে দেয়. রিসোর্ট গুলো হচ্ছে ১/ মেঘ মাচাং রিসোর্ট, ২/ মেঘ পুন্জি রিসোর্ট  ৩/মৈত্রী  রিসোর্ট ৪/ড্রীম সাজেক রিসোর্ট  ৫/দার্জিলিং রিসোর্ট ৬/এভারেষ্ট রিসোর্ট। 

স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, জেএসএস(সন্তু)  সাজেকের এরিয়া কমান্ডার প্রমিজ চাকমা ওরফে প্রমেস চাকমা উক্ত রিসোর্টগুলোতে পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ার জন্য জীপগাড়ির ড্রাউভারদের নিষেদ করে দেন।এমতাবস্থায় রিসোর্ট মালিকরা তাদের পূর্বের পাওয়া বুকিংগুলো বাতিল করে দিয়েছেন। এবং কোন রিসোর্ট মলিক পক্ষ এবিষয়ে আঞ্চলীক সংঘটনের ভয়ে প্রসাশন বা নিরাপত্তাবাহিনীর সহযোগীতাও নিচ্ছেননা।উল্লেখ্য, সমৃদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৮০০ ফুট উচ্চতায় গড়ে উঠা এই পর্যটন কেন্দ্রটিতে পানি সরবরাহ করা হয় পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত ঝরণা এবং ছড়া থেকে।এবিষয়ে সাজেক রিসোর্ট মালিক সমিতির সভাপতি সু-পর্ণ ত্রিপুরা বলেন, কোন কারন ছাড়াই উক্ত রিসোর্ট গুলোতে জেএসএস কর্তৃক পানি সরাবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে, এবিষয়ে আমরা তাদের সাথে যোগাযোগ করেছি এবং কি কারনে বন্ধ করেছে এর কোন কারনও বলছেনা, তবে কি করা যায় আমরা সকল রিসোর্ট মালিক পক্ষ দুয়েক দিনের মধ্যে বৈটক করব দেখি কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।জেএসএস বাঘাইছড়ি উপজেলা শাখার সাধারণ-সম্পাদক বড়ঋষি চাকমার কাছে এবিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এবিষয়ে আমার জানা নেই আমি নির্বাচনী প্রচারনায় রয়েছি, তবে সংঘটন থেকে আমার জানামতে এরকম কোন কিছু করা হয়নি তবে আমি এবিষয়ে খবর নিয়ে দেখব।এবিষয়ে সাজেক থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুল আনোয়ার সাথে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সংযোগ না পাওয়ায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

আরো দেখুন

আরও সংবাদ