মোট দেখেছে : 196
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

চিটাগং ভাইকিংস ৩ উইকেটে হারাল ঢাকা ডায়নামাইটসকে

 চিটাগং ভাইকিংস আবারো ফ্রাইলিঙ্ক নৈপুণ্যে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে। শেষ ওভারের নাটকে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ৩ উইকেটে হারাল চিটাগং। ১৩৯ টার্গেটে মোসাদ্দেক, মুশফিকুর ও ফ্রাইলিঙ্কের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে নিজেদের পঞ্চম জয় নিশ্চিত হয়।


বৃথা গেল সাকিবের চার উইকেট। দলকে জয়ের খুব কাছে রেখে রান আউট হয়েছেন মোসাদ্দেক। ৩৩ রানের দুর্দান্ত ইনিংসের অপমৃত্য রান আউটে। ম্যাচটা ওখানেই হাতছাড়া হওয়ার দশা চিটাগংয়ের।


কিন্তু ফ্রাইলিঙ্ক আরেকবার ত্রাতা হয়ে এলেন। শেষ ওভারে মোহর শেখের এক ওভারে ২১ রান নিয়ে রোমাঞ্চকর জয় নিশ্চিত করেন।আগের ম্যাচে আসরের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ে চিটাগং। ১৪০ টার্গেট কঠিন হওয়ার কথা না।


শাহজাদ দ্রুত আউট হলেও ক্যামেরন ডেলপোর্ট ভড় তোলেন।সাকিবকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে বিপদ ডাকলেন। এরপর ইয়াসির-শানাকার দ্রুত বিদায়ে ১৪০ লক্ষ্য কঠিন বানিয়ে ফেললো ভাইকিংরা।


মুশফিকুর-মোসাদ্দেক জুটিতে আশা। চিটাগংও আস্তে আস্তে ম্যাচে ফেরে।ফিফটি-ফিফটি ম্যাচটায় প্রাণ ফেরান রুবেল-সাকিব। চার উইকেট নিয়ে টপ চার্টে উঠে এলেন ডায়নামাইটস কিপার। কিন্তু শেষ ওভারে রান চেক দিতে পারলেন না মোহর শেখ। 



এর আগে জোড়া উইকেট নিয়ে চিটাগংকে ভালো শুরু এনে দেন ফ্রাইলিঙ্ক। জ্বর থেকে ফিরে নিয়েছেন জোড়া উইকেট। বিপিএলের প্রথম ম্যাচ সুখকর হয়নি সাউথ আফ্রিকান হেইনো কুনের। দারউইশ রাসুলও হতাশ করেছেন। এবার আবু জায়েদ রাহির জোড়া।



৫৬ রানে ৪ উইকেট হারানো ডায়নামাইটসকে পথ দেখান সাকিব ও সোহান।


দুই ব্যাটসম্যান যখন গেড়ে বসছিলেন, তখন ডেলপোর্টের ডাবল স্ট্রাইক। আট বলের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে মোমেন্টাম হাতছাড়া হয়।এরপর শুভাগত হোমের ১৫ বলে ২৮ ক্যামিওতে কোনরকমে ১৩৯ করে ঢাকা।

আরো দেখুন

আরও সংবাদ